বাগেরহাটে করোনা ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু

বাগেরহাটে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। রবিবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় বাগেরহাট সদর হাসপাতালের সম্প্রসারিত ভবনে প্রথমে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক আনম ফয়জুল হককে টিকা প্রদান করেন সিনিয়র ষ্টাফ নার্স শাশীম আরা খানম।এরপরেই পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়কে টিকা দেন সিনিয়র ষ্টাফ নার্স নাজমা খানম।ডিসি, এসপির পরে টিকা নেন সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির।

এরপরে একে একে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা(এনএসআই)-র যুগ্ন পরিচালক শরীফ উদ্দিন আহমেদ, মোরেলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড. শাহ-ই-আলম বাচ্চু, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ মোছাব্বেরুল ইসলাম, বাগেরহাট সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রদীব কুমার বকসি, জনপ্রতিনিধি আফরোজা খানম গনমাধ্যমকর্মী বিষ্ণ প্রসাদ চক্রবর্তী, আলী আকবর টুটুলসহ অনেকেই টিকা গ্রহন করেন।দুপুর ২টা পর্যন্ত বাগেরহাট সদর হাসপাতালে টিকা কার্যক্রম চলবে।প্রথম দিনে দুইশত জনকে টিকা দেওয়া হবে বলে জানান সিভিল সার্জন।

এর আগে ফিতা কেটে এই টিকা প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক আনম ফয়জুল হক। এসময় পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়, সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক দেব প্রসাদ পাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খন্দোকার মোহাম্মাদ রিজাউল করিম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ শাহিনুজ্জামান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি মুশফিকুর রহমান, বাগেরহাট বিএমএ-র সাধারণ সম্পাদক ডা. মোশাররফ হোসেনসহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

টিকা গ্রহন শেষে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক আনম ফয়জুল হক বলেন, আপনারা জানেন সারা দেশে এক সাথে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী টিকা প্রদান শুরু হয়েছে। আমরা বাগেরহাট জেলায়ও টিকা কার্যক্রমের উদ্বোন করেছি। টিকা গ্রহন শেষে আমি সম্পূর্ণ সুস্থ্য রয়েছি। কোন প্রকার শারীরিক সমস্যা হয়নি। আমি বাগেরহাটবাসীকে অনুরোধ করব রেজিষ্ট্রেশন করে ভ্যাকসিন গ্রহন করুণ।

টিকা গ্রহন শেষে গনমাধ্যমকর্মী আলী আকবর টুটুল বলেন, একজন গনমাধ্যমকর্মী হিসেবে কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে শুরু থেকে এখন পর্যন্ত পেশাগত কাজে মাঠে ছিলাম। এখনও আছি। ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য আমি শনিবার বিকেলে নিবন্ধন করেছি। রাতে ম্যাসেজ পেয়েছি, সকালে সদর হাসপাতালে গিয়ে টিকা গ্রহন করেছি।আমি সম্পূর্ণ সুস্থ্য আছি, কোন প্রকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এখন পর্যন্ত নেই।

বাগেরহাটের প্রথম নারী হিসেবে টিকা গ্রহন করেন বাগেরহাট জেলা পরিষদের সদস্য আফরোজা খানম।তিনি বলেন, আমি প্রস্তুতি নিয়ে চেয়ারে বসলাম। খুব অল্প সময়ের মধ্যে সেবিকাগণ আমাকে টিকা দেওয়া সম্পূর্ণ করলেন। আমি টের-ই পাইনি যে আমাকে টিকা দেওয়া হয়েছে।অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় যে আমরা টিকা পেয়েছি, এ জন্য আমি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। সকল নারীদেরকে নিবন্ধন সম্পূর্ণ করে সময়মত টিকা গ্রহন করার আহবান জানান তিনি।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ভ্যাকসিন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন। আমি, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার মহোদয়সহ জেলার উর্দ্ধোতন কর্মকর্তারা টিকা গ্রহন করেছি। সবার উচিত নির্দিষ্ট নিয়মে নিবন্ধন করে টিকা গ্রহন করা। প্রতিদিন ৮টি উপজেলায় ২‘শ করে, পুলিশ হাসপাতালে ১‘শ, বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ৬‘শ করে টিকা দেওয়া হবে।এই কার্যক্রম চলমান থাকবে। বাগেরহাট জেলায় প্রথম ধাপে ৪৮ হাজার ডোজ টিকা এসেছে।

বার্তা প্রেরক
তানজীম আহমেদ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

১ মন্তব্য

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন